আমি মামুন সৃজন, Creative Aliens এর ক্রিয়েটিভ হেড
আমি যেভাবে কাজ করি

Shares

নাম এবং পেশা

মামুন সৃজন | Creative Aliens এর ক্রিয়েটিভ হেড, আমাদের নতুন স্টার্টআপ EvenFly এর হেড অফ ডিজাইনস। এর পাশাপাশি এক বছরের কিছু বেশি হলো Freelance Interaction Designer হিসেবে Elance-oDesk প্রোডাক্ট ডিজাইন টিমে যোগদানের পর থেকে এখনো কাজ করছি। সর্বোপরি এখনো নিজেকে ফ্রিল্যান্স-ডিজাইনার হিসেবে পরিচয় দিতেই স্বাচ্ছন্দবোধ করি।

কবে কখন কিভাবে আপনি ডিজাইনের জগতে আসেন? আপনি কি ছোট বেলা থেকেই এমন সৃজনশীল ছিলেন বা নির্দিষ্ট একটি সময় পার হবার পরে এমন হয়েছেন?

ক্রিয়েটিভের সঠিক সংজ্ঞা আমি আসলে জানি না। ছোটবেলায় আমার সবচে বাজে অভ্যাস ছিল নতুন কিছু পেলেই সেটার নাট-বল্টু খুলে পূর্ণাঙ্গ ব্যবচ্ছেদ ঘটানো। পরে সেটা কিছু বাদ দিয়ে অন্য খেলনা থেকে কিছু খুলে এসে সেটার সাথে জুড়ে দিয়ে মোডিফাই করা।

সেই ছোটবেলায় খেলনার নাটবল্টু খুলতে খুলতে বড় হয়ে কম্পিউটারের সাথে পরিচয় হবার পর থেকে, কম্পিউটারের ফাইলপত্রের উপরেও একই ধরণের অপারেশন চলতো। এসব করতে করতেই কখন কিভাবে  ফটোশপ-ইলাস্ট্রেটর ভাল লেগে গেলো। কাজের ক্ষেত্র বদলেছে, হার্ডওয়ার বদলেছে, সফটওয়্যারের ভার্সন বদলেছে। কিন্তু আমি আসলে সেই যোগ-বিয়োগ নিয়েই আছি। এখনো নতুন কিছু পেলে উল্টে পাল্টে সেটার বারোটা বাজাতেই ভাল লাগে।

কোথা থেকে আপনি প্রতিদিন ডিজাইন করার উৎসাহ পান?

আমার ইন্সপায়ারেশনের প্রধান সোর্স Google। এছাড়াও বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য Dribbble, Pinterest, Awwwards, Web Design Inspiration, One Page Love ইত্যাদি।

আপনার চোখে সর্বকালের শ্রেষ্ঠ ডিজাইনার কে?

যদি সর্বকালের কথা বলেন তাহলে বলবো লিওনার্দো দা ভিঞ্চি। সেই যুগে যেসব কনসেপ্ট দিয়ে গেছেন, এযুগেও আমরা তা ভাবতেও পারি না।

আর আমার পেশাসংক্রান্ত ডিজাইনারের কথা বললে বলবো –

ডিজাইনের ক্ষেত্রে প্রয়োজন পরে এমন টুলস বা সফটওয়্যারের নাম বলুন যেটি ছাড়া আপনার চলা প্রায় অসম্ভব এবং কেন?

কম্পিউটারের কনফিগারেশনের চাইতে প্রচুর কাগজ, অন্তত একটা ভাল কলম এবং একটা কমফোর্টেবল মাউস আমার কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আপনি আমাকে যত ভাল কম্পিউটারই দেন না কেন, এগুলো ছাড়া আমি কাজ করতে পারব না।

আমার এ পুরোনো ফেসবুক কভারেই মোটামুটি আমার নিত্যদিনের সঙ্গীদের সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যাবে :)

mamun-srizon-facebook

এছাড়া, কম্পিউটারে এক স্ক্রিনে কাজ করতে আমি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি না। আমি সবসময়ই পাশাপাশি দুইটা এক্সটেন্ডেড ডিসপ্লেতে কাজ করি। সফটওয়ারের কথা বলতে গেলে বলবো Photoshop এবং Illustrator.

আপনি যখন কোন ডিজাইন করার জন্য মনস্থির করেন তখন ডিজাইনটি করার আগে স্কেচ বা ছবি এঁকে নেন নাকি সরাসরি কম্পিউটারে ডিজাইন করা শুরু করে দেন?

আমার কাজের প্রোসেসটা এরকম:

  • ৩০% সময় ক্লায়েন্টের সাথে কাজের বিষয়ে আলোচনা এবং তার প্রোডাক্ট/সার্ভিস সম্পর্কে জানতে।
  • ৪০% সময় কাটে কী করবো আর কীভাবে করবো এ নিয়ে শুধু চিন্তাভাবনা এবং রিসার্চ করে।
  • ২০% সময় ক্লায়েন্টের চাওয়া এবং আমার ভাবনার গুরুত্বপূর্ণ অংশগুলো নোট করে।
  • বাকি ১০% সময়ে আমি কম্পিউটারে কাজ করি আমার প্লানটাকে বাস্তবরূপ দেবার জন্য।

অনেক সময় ইনিশিয়াল আইডিয়াটা ক্লায়েন্ট বা টিমমেটদেরকে বুঝানোর জন্য কিছু আঁকিবুকি করতেই হয়, ব্যস, সে পর্যন্তই। নিজের জন্য আমি কখনো স্কেচ করি না।

mamun-srizon-project-flow

ধরা যাক, আমি একটা ওয়েবসাইট রিডিজাইন করবো। সেক্ষেত্রে আমার কাজের প্রোসেসটা সাধারণতঃ এরকম-

  • ক্লায়েন্টকে আমি তার কাজ সম্পর্কে অনেকগুলো প্রশ্ন করি। যেমন- কেন এটা রিডিজাইন করতে চায়, তার কোন ধরণের ডিজাইন পছন্দ। তার কম্পিটিটররা তার থেকে কতখানি এগিয়ে/পিছিয়ে ইত্যাদি।
  • এর পরের ধাপ, আমি তার যে প্রোডাক্ট বা সার্ভিসের জন্য ওয়েবসাইট ডিজাইন করবো সেই প্রোডাক্ট বা সার্ভিস সম্পর্কে প্রচুর ঘাটাঘাটি করে। কারণ একটা ওয়েবসাইটকে যদি একটা প্রোডাক্টের রিপ্রেজেন্টেটিভ হিসেবে ধরেন, আপনি এখন সেই রিপ্রেজেন্টেটিভকে তৈরি করতে যাচ্ছেন। আর সেজন্য সবার আগে আপনাকে জানতে হবে, এই প্রোডাক্ট সম্পর্কে তার Potential Customer-রা কী জানতে চায়, এই প্রোডাক্টের গ্রাহক কারা, তাদের বয়স কেমন, রূচি কেমন ইত্যাদি। আপনার রিপ্রেজেন্টেটিভকে সেভাবেই তৈরি করতে হবে। আপনার ওয়েবসাইটে কত তথ্য আছে সেটা নিয়ে কেউ মাথা ঘামায় না, গ্রাহক যা জানতে চায় তা আছে কিনা এটাই গুরুত্বপূর্ণ।
  • ক্লায়েন্টের সমস্যা, চাহিদা, রূচি, তার প্রোডাক্ট/সার্ভিস, তার টার্গেট অডিয়েন্স সম্বন্ধে ধারণা পাবার পর আমার বেশ কিছুদিন কেটে যায় শুধুমাত্র তার বর্তমান সমস্যা সমাধানের সবচে ভাল সমাধানের পথগুলো ভেবে ভেবে। এসময়ে বলা চলে আমি একদম কিছুই করি না। বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিই, ঘুরি ফিরি, মোবাইলে গেম খেলি আর মাথায় নতুন কোন আইডিয়া আসলে সেটা কাগজে লিখে রাখি।

mamun-srizon-inside-project

  • এভাবে কয়েকদিন কেটে গেলে কিছু বেসিক আইডিয়া জমা হয়ে যায়। সেগুলোকেই কাটাছেড়া, একটার সাথে আরেকটার জোড়াতালি দিয়ে আইডিয়ার শর্টলিস্ট বানাতে।
  • এবার সে আইডিয়াগুলোই কম্পিউটারে ডিজাইন করে ক্লায়েন্ট বা টিমকে দেখানো এবং ফিডব্যাক নেয়া। ফিডব্যাকের উপর ভিত্তি করে সেটাকে মোডিফাই করা, এভাবেই ফাইনাল না হওয়া পর্যন্ত প্রোসেসটা চলতেই থাকে।

আপনার কাজের স্থানটি কেমন?

mamun-srizon-workspace
  • একটা এন্ড্রয়েড ফোন।
  • Windows 8.1 এবং OS X Yosemite চালিত দুইটা ল্যাপটপ।
  • সবমিলিয়ে চারটা ডিসপ্লে, যথাক্রমে 1024×768, 1366×768, 1440×900 এবং 1920×1080
  • মূল ডেটা স্টোরেজ হিসেবে একটা ছোটখাট NAS. ফলে এক কম্পিউটার থেকে আরেক কম্পিউটারে ফাইলপত্র টানাটানি করা লাগে না। যখন যে কম্পিউটার খুশি সেটা থেকেই সব ফাইল এক্সেস করা যায়।
  • ডেটা ব্যাকাপের জন্য আর দুইটা পোর্টেবল হার্ডডিস্ক।
  • দুই সেট এক্সটার্নাল কিবোর্ড-মাউস।
  • আর কাগজ-কলম।

এখানে বলে রাখা দরকার, আমার সবগুলোই সাধারণ মানের ডিসপ্লে এবং সবগুলো ডিসপ্লেই ডিফল্ট সেটিং। অনেক ডিজাইনারকেই দেখা যায় ডিসপ্লের কালার এডজাস্ট করতে করতে সেইরকম চকচকে বানিয়ে ফেলে। এটা আমি একদম পছন্দ করি না।

পৃথিবীর অধিকাংশ মানুষের কম্পিউটারের ডিসপ্লেই ডিফল্ট সেটিংয়ে থাকে। আমার ডিসপ্লের কালার, ব্রাইটনেস, কনট্রাস্ট এডজাস্ট করে করে হয়তো ডিজাইনটাকে অনেক সুন্দর দেখা যাবে। কিন্তু ডিজাইনটা যাদের জন্য তৈরি তাদের কী হবে? এজন্য ডিজাইন ভাল দেখানোর জন্য আমি ডিসপ্লের কালার এডজাস্ট না করে, ডিজাইনের কালার এডজাস্ট করতে পছন্দ করি।

এছাড়া বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ডিসপ্লেতেও কালার বিভিন্ন রকম দেখায়। যেমন: একটা 100×100 px সাদা ক্যানভাসের উপরে  #F4FDFF কালারের একই সাইজের একটা বৃত্ত আঁকুন এবং ভিন্ন কয়েকটা ব্রান্ডের ডিসপ্লেতে দেখুন। :)

এজন্য নিজের ডিসপ্লেকে চকচকে না বানিয়ে সবার ডিসপ্লেতেই যাতে ডিজাইনটা ভাল দেখা যায় সেটাই আমার জন্য বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

কাজ করার সময় আপনি কোন ধরনের গান শুনতে পছন্দ করেন?

পৃথিবীর অধিকাংশ প্রোফেশনালের সাথে আমার সবচে বড় অমিল এখানেই। আমি কাজের সময় কোন রকম গান/মিউজিক শুনতে পছন্দ করি না। আমি সাধারণতঃ রাতে কাজ করি। চারপাশ যখন একেবারে নিস্তব্ধ। অতিরিক্ত আলো, শব্দ এবং মানুষের উপস্থিতি আমার কাজে ব্যাঘাত ঘটায়।

আপনার জীবনের টাইম সেভিং শর্টকাট অথবা লাইফ হ্যাক কি?

  • লিখে রাখার অভ্যাস – আমি বিশ্বাস করি, সবকিছু মনে রাখার চাইতে লিখে রাখা ভাল উপায়।
  • ফাইল গুছিয়ে রাখার অভ্যাস – ব্যক্তিজীবনে আমি একজন চূড়ান্তরকম অগোছালো মানুষ হলেও আমার কাজের ফাইলপত্র খুব ভালভাবে গোছানো এ বিষয়ে বাজি ধরতে পারেন। এজন্য আমাকে কখনোই আমার প্রয়োজনীয় ফাইলটি খুঁজতে হয় না।

প্রতিদিনের টু-ডু লিস্ট তৈরি করার জন্য কোন সফটওয়্যার/পন্থাটি আপনার কাছে সেরা মনে হয়?

Digitalization এর এ যুগেও আমার সবচে প্রিয় পার্সোনাল টুডু লিস্ট ম্যানেজার আমার কাগজের ডেস্ক ক্যালেন্ডার। আমার প্রতিদিনকার কাজগুলো এতেই লিখে রাখি, যার ফলে সবসময় আমার টাস্কগুলো আমার সামনেই থাকে।

আর টিমওয়ার্কের ক্ষেত্রে Trello এবং Wunderlist ব্যাবহার করি।

একজন বাংলাদেশি হিসেবে যানজট আমাদের নিত্য দিনের সঙ্গী। আপনি যানজটের সময়টাকে সদ্ব্যবহার করার জন্য কী করেন?

আমি যেহেতু ঢাকার বাইরে (ঝিনাইদহে) থাকি। কোন প্রকার ট্রাফিক জ্যামে আমাকে সাধারণতঃ পড়তে হয় না। তাছাড়া আমি গাড়ির চাইতে আমার মোটরসাইকেলেই চলাচলে স্বাচ্ছন্দবোধ করি বিধায় ট্রাফিক জ্যাম নিয়ে আপাতত আমার কোন সমস্যা নেই।

আপনার মোবাইল এবং কম্পিউটার ছাড়া এমন কী ডিভাইস ব্যাবহার করেন যেটা ছাড়া আপনি থাকতে পারবেন না?

আমি খুবই সাধারণ জীবনযাপন করতে পছন্দ করি। একমাত্র ঘড়ি ছাড়া সবরকম গেজেট/গিয়ারের প্রতি আমার আকর্ষণ খুব কম। আমি যতক্ষণ জেগে থাকি, তার 60% ফোনে, 30% কম্পিউটারে আর বাকি 10% সময় অনির্দিষ্ট। আমার টিম, ক্লায়েন্ট, বন্ধু, পরিবার সবার সাথেই Skype, Facebook, Email এগুলোই যোগাযোগের সবচে বড় মাধ্যম এবং এর বেশিরভাগই ফোনেই সেরে ফেলি। অবশ্য ফোনে কথা বলা আমার জন্য সবচে বিরক্তিকর কাজ। অনেকসময়ই আমার ফোনের ইনকামিং কল বন্ধ থাকে :)

যদি এগুলোর কোনটাই না করি, ধরে নিতে পারেন, আমি আমার মোটরসাইকেল নিয়ে উদ্দেশ্যবিহীনভাবে ঘুরতে বেরিয়েছি।

দিনের ঠিক কোন সময়ে আপনি খুব মনোযোগ দিয়ে কাজ করতে পারেন?

এখন পর্যন্ত রাত এগারোটা থেকে তিনটা।

আপনার দৈনিক ঘুমানোর সময়সূচি কেমন?

যখন দেশে চাকরি করতাম, তখন রাতে ঘুমাতাম, দিনে অফিস করতাম। গত চারবছর রিমোট জব এবং ফ্রিল্যান্স উভয় ক্ষেত্রেই কলিগ এবং ক্লায়েন্টদের সাথে যোগাযোগের সুবিধার্থে আমেরিকার টাইমজোন অনুসারে বাংলাদেশ সময় রাত এগারোটা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত কাজ করতাম। এরপর ঘুমাতে ঘুমাতে সকাল দশটা এগারোটা, ঘুম থেকে উঠতাম সন্ধ্যায়।এ বছর থেকে ঘুমানোর সময়টা ভোর থেকে দুপুর পর্যন্ততে পরিবর্তন করার চেষ্টা করছি। :)

প্রতিদিন আপনার কাছে এমন কী মনে হয়, যে আপনি সবার থেকে আলাদা ?

যেকোন কিছু (বিশেষ করে মানুষের নাম এবং/অথবা চেহারা) ভুলে যাবার এক অসামান্য প্রতিভা আছে আমার। সম্ভবতঃ এ বিষয়ে আমিই সেরা।

আপনার কাছে গুণীজনদের কাছ থেকে পাওয়া এখন পর্যন্ত সেরা উপদেশ কোনটি মনে হয়েছে?

সবসময় ক্লাসের ফার্স্ট বেঞ্চ অথবা লাস্ট বেঞ্চে বসা উচিত। কখনোই মাঝামাঝি নয়।

তিনটা বই এবং চলচিত্র নাম আপনি মনে করেন সব ডিজাইনারদের পরা এবং দেখা উচিত?

যেহেতু হাসিন ভাই, তানভীর ভাই, ওয়াহিদ ভাই আগেই Don’t Make Me Think-সহ আরো চমৎকার কিছু বইয়ের নাম বলেছেন, একই জিনিস বারবার রিপিট করার চাইতে আমি বরং আমার পছন্দের তিনটা ফিল্ম এর নাম বলবো।

mamun-srizon-movie-presspauseplay

PressPausePlay

mamun-srizon-movie-objectified

Objectified

The Artist Series

The Artist Series

 

যেকোনো জটিল পরিস্থিতিতে নিজের কাজ করার মন মানসিকতা ঠিক রাখার জন্য আপনি কী করেন?

Time heals everything

আপনি কিভাবে “User Interface” এবং “User Experience” পার্থক্য করেন?

UX হচ্ছে ডিজাইনের মেরুদণ্ড, আর UI হচ্ছে তার প্রসাধনী।

আপনার ইউআই/ইউএক্স ইঞ্জিনিয়ার জীবনে এখন পর্যন্ত সব থেকে বড় অর্জন কোনটি?

এত বছর এ পেশায় আছি, একদিনের জন্যও বিরক্তি লাগে নি।

সবারই একটি স্বপ্ন বা ইচ্ছা থাকে ভবিষ্যতে একটি প্রতিষ্ঠান বা প্রোজেক্ট নিয়ে কাজ করার; আপনারও যদি এমন কোন স্বপ্ন বা ইচ্ছা থেকে থাকে তবে সেটি কী নিয়ে?

আমি বিশ্বাস করি –

কাজের জন্য বেঁচে থাকা নয়, বেঁচে থাকার জন্য কাজ

আমাদের সমাজ সংস্কৃতি অনুসারে (প্রায়) সবাই একটা বড় কোম্পানী, ব্যস্ত সময় এবং অনেক নামডাকের স্বপ্ন দেখে এবং মোটামুটি ৩৫ বছর বয়সের মধ্যে সে বাকি জীবন কী কাজ করবে তা নির্ধারণ হয়ে যায়।

আমি সম্ভবতঃ এখানেই সবার থেকে আলাদা। আমি স্বপ্ন দেখি ওরকম বয়সে আমার কর্মজীবন শেষ করার। এখন পরিশ্রম করছি যাতে ভবিষ্যতে প্রচুর সময় নিজেকে এবং পরিবারকে দিতে পারি।

এই মানুষগুলোকে আমার পৃথিবীর সবচে সুখী মানুষ মনে হয়।

আপনি যদি অ্যাপলের জন্য কোন অ্যাপস ডিজাইন করেন তবে সেটি কী হবে এবং কেন?

অবশ্যই ডিফল্ট “Archive Utility”।

আমার ধারণা উইন্ডোজ থেকে ম্যাকে সুইচ করা ইউজার মাত্রই আমার সাথে একমত হবেন, ম্যাকে Zip ফাইল খোলার/এক্সপ্লোর করার ডিফল্ট সিস্টেমটা খুবই বিরক্তিকর।

আপনার মতে, বর্তমানে বাংলাদেশে ডিজাইন কমিউনিটির অবস্থান কেমন? ভবিষতে কেমন হবে বলে আপনি মনে করেন?

আমাদের একটা বিশেষ গুণ, আমরা বাঙালিরা জন্মতগভাবেই সামাজিক। গত দু’বছরে বাংলাদেশের ডিজাইন কমিউনিটি রকেটের গতিতে এগিয়েছে বলা যায়। যেখানে কয়েক বছর আগেও কমিউনিটিতে তেমন কোন একটিভ ডিজাইনার দেখা যেত না বলেই চলে। আমি বিশ্বাস করি আগামী কয়েক বছরের মধ্যে বংলাদেশের ডিজাইন কমিউনিটি অনেক ভাল অবস্থানে পৌছাবে।

ডেভেলপারদের সাথে আপনার সম্পর্ক কেমন? আপনি কী তাদের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ আচরণ করেন নাকি প্রতিদ্বন্দ্বী ভেবে সব সময় কাজ করেন?

আমি মনে করি একজন ডিজাইনারের বেস্ট ফ্রেন্ড হওয়া উচিত একজন ডেভলপার। একজন ডিজাইনারকে অবশ্যই ডেভলপার কমিউনিটির খোঁজ-খবর রাখতে হবে, ডেভলপাররা এখন কিভাবে কাজ করছে, কোন কাজের কোন টুলসগুলো নিয়ে তারা কাজ করতে স্বাচ্ছন্দবোধ করে।

একটা খুব প্রচলিত কথা আছে-

A Designer’s Dream, a Developer’s Nightmare

আমি এটার ঘোর বিরোধী। দুঃস্বপ্ন থেকে কখনোই ভাল কিছু আসতে পারে না। একটা সফল প্রোজেক্টের জন্য  ডিজাইনারকে অবশ্যই এমন কিছু তৈরী করতে হবে যা ডেভলপারও ভালবাসবে। প্রোফেশনালি কাজ করতে গেলে অনেক লেভেলের ডেভলপারের সাথেও কাজ করতে হয়। আর এজন্য ডিজাইনগুলো শুধু নিজের লেভেলে না করে ডেভলপারের লেভেলটাও মাথায় রাখা উচিত।

আমাদের একটা খুব ভাল দিক হচ্ছে, আমাদের দেশে ডিজাইনার  এবং ডেভলপার কমিউনিটির মধ্যে চমৎকার একটা বন্ধন আছে, যা পৃথিবীর অধিকাংশ দেশেই সচরাচর দেখা যায় না। আর শুধুমাত্র এ কারণেই আমরা অনেক দুর এগিয়ে যাব।

“Dribbble” এর ব্যাপার এ আপনার কী মতামত? এটা কি ভাল মাধ্যম জব পাওয়ার জন্য? আপনার মতে কোনটি সবচেয়ে ভাল মাধ্যম ডিজাইনারদের জন্য জব পাওয়ার?

হ্যাঁ, ড্রিবল অবশ্যই কাজ  পাবার জন্য একটা ভাল মাধ্যম। ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেসগুলো বাইরে Twitter এবং Linkedin এবং Behance ও ডিজাইন রিলেটেড কাজের ভাল উৎস।

যারা ভবিষ্যতের ইউএক্স ডিজাইনার/ইঞ্জিনিয়ার হতে যাচ্ছে তাদেরকে আরও উৎসাহিত করতে আপনার উপদেশ কী হবে? ঠিক কিভাবে কাজ করলে তারাও একদিন আপনার মতো হতে পারবে?

আপনি যদি Google Search না পারেন, আপনাকে দিয়ে কিছুই হবে না। বৃথা সময় নষ্ট করবেন না।

শূন্যস্থান পুরন করুন, আমি এই একই প্রশ্নের উত্তর গুলো  ______  কাছ থেকে শুনতে পছন্দ করব।

সব ডিজাইনার।

ফটো ক্রেডিটঃ আনাম আহমেদ

ফটো ক্রেডিটঃ আনাম আহমেদ

Shares