আমি ওয়াহিদ বিন আহসান, Userhub এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা
আমি যেভাবে কাজ করি

Shares

নাম এবং পেশা

ওয়াহিদ বিন আহসান । প্রতিষ্ঠাতা , ইউএক্স স্যাটারডে উইথ ওয়াহিদ । সহ-প্রতিষ্ঠাতা, ইউজার স্টাডি এ্যান্ড এক্সপেরিএন্স রিসার্চ হাব (ইউজারহাব) । প্রতিষ্ঠাতা, বাংলাদেশ ইউজার এক্সপেরিএন্স প্রফেশনালস’ এ্যাসোসিয়েশন

আপনি একই সাথে কয়েকটি কোম্পানির সাথে যুক্ত আছেন, কিভাবে একইসাথে সবগুলো পরিচালনা করেন ?

আমার কাছে এই সব ক’টিই একেকটি বড় প্রজেক্ট, যাদের নিজনিজ সাব-প্রজেক্ট আছে। সাব প্রজেক্টগুলতে আবার প্রায়োরিটি অনুযায়ী ডেডলাইন ভিত্তিক টাস্ক ও সাব-টাস্ক আছে। তাই খুব সাচ্ছন্দেই আমি সেগুলো ম্যানেজ করতে পারি।

আপনি “Hands on UX“, অনলাইনে সেমিনার এবং ইউএক্স ওয়ার্কশপের আয়োজন করেন। একটু কি বিস্তারিত বলবেন? এবং কিভাবে যোগদান করা সম্ভব ওয়ার্কশপগুলো?

“ইউএক্স স্যাটারডে উইথ ওয়াহিদ” এর ওয়ার্কশপগুলো মূলত ইউজার এক্সপেরিএন্স ডিজাইন ও ইঞ্জিনিয়ারিং সম্পর্কে বিদ্যার্থীদের প্রাথমিক ধারনা/প্রশিক্ষন দেয়া, ও ইউজ্যার সেন্টারড ডিজাইনে তাদেরকে উৎসাহিত করা। যেকোন ছাত্র/ছাত্রী এই ওয়ার্কশপগুলোতে জয়েন করতে পারে। ২০১৩ সাল থেকে ২০১৪ পর্যন্ত কুয়েট, আইআইটি, ডুয়েট, ব্রাক ইউনিভার্সিটি, বেগম রোকেয়া ইউনিভার্সিটি, এআইউবি তে ৭টি ওয়ার্কশপ করেছি। আমার কর্মশালাগুলো সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতেঃ ইউএক্স স্যাটারডে উইথ ওয়াহিদ ।

hands-on-ux

বাংলাদেশে আপনার “Therap Services, LLC” সহ অন্যান্য অনেক সফটওয়্যার কোম্পানিতে কাজ করার অভিজ্ঞতা রয়েছে । সেই অভিজ্ঞতাগুলো যদি শেয়ার করতেন ।

Therap এ আমি স্বল্পকালীন কন্সাল্ট্যান্ট হিসেবে কাজ করেছি। সেখানে আমার দায়িত্ব ছিল, সফটওয়্যারের ইউজেবিলিটি ও এ্যাক্সেসিবিলিটি পর্যালোচনা করে এক্সপেরিএন্স ইম্প্রুভমেন্ট সাজেস্ট আর “ডিজাইন টিম” কে এবং এডুকেশন/ট্রেইনিং দিয়ে “ইউএক্স টিম” এ আপগ্রেড করা। প্রতিষ্ঠানটির পরিবেশ কাজ করার জন্য বেশ ভালো।

desme Bangladesh এর সাথে আমি ৫ বছর ধরে কাজ করেছি। টিমের সবার সাথেই আমার বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক। bGlobal Sourcing LLC ( এখন বিজি ইন্টারেক্টিভ) এর আমি প্রথম এমপ্লয়ি ছিলাম। কম্পানিটির ব্রান্ড আইডেন্টিটি/মার্কেটিং পুরটাই আমার করা।

গল্পের বাকিটা না হয় আমার লিঙ্কডিন থেকেই দেখে নিন।

আপনি বাংলাদেশের পাশাপাশি বাহিরেও অনেক কাজ করেছেন। সেগুলো সম্পর্কে একটু বলুন। আপনার মতে বাংলাদেশের সাথে অন্য দেশের কাজের পরিবেশের পার্থক্য কোথায়?

২০১৩ সালে মেরিল্যান্ড ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ওয়েবমেইসনের ওয়েবসাইট রিডিজাইন করার জন্য বেষ্ট মার্কেটিং ওয়েবসাইট ক্যাটেগরিতে ওয়েব মার্কেটিং এসোসিয়েশনের এওয়ার্ড পাই । একই বছর সেপ্টেম্বরে ওয়েবমেইসনে এক মাসের জন্য ইনভাইটেড ইউএক্স আর্কিটেক্ট হিসেবে যাই। সেসময় তাদের ইঞ্জিনিয়ারিং প্রসেস ইম্প্রুভমেন্টে সহযোগিতা করার পাশাপাশি প্রজেক্ট ম্যানেজারদের ইউএক্স ট্রেইনিং দেই।

ইউনাইটেড ন্যাসন্স ইন্ডাস্ট্রিয়াল ডেভেলপমেন্ট অরগ্যানাইজেশনে (UNIDO)’র একটা প্রজেক্টে জাতীয় বিশেষজ্ঞ (ওয়েব আর্কিটেক্ট) হিসেবে কিছুদিন কাজ করেছি। এসময় ইউএনের কাজের প্রসেস ও ধরন সম্পর্কে ধারনা পাই। বাহরাইনে একটা ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট স্টার্টআপের ব্রান্ডিং ও সফটওয়ার এক্সপেরিএন্স নিয়ে কাজ করেছি। বাহরাইনে আমি অনেক বড়বড় ব্রান্ডের সাথে কাজ করেছি; যেমন, ফ্যাশন টেলিভিশন, মারসিডিস বেন্জ, নিসান, বাটেলকো, যেইন টেলিকম (এমটিসি ভডাফোন)।

অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি বেইজড আরেকটি স্টার্ট-আপ এর সাথে কাজ করা শুরু করি, যা আমি দেশে ফিরে আশার পরেও ৬ মাস কন্টিনিউ করি। মেরিল্যান্ড এর প্রতিষ্ঠান ওয়েবমেইসন এক মাস কাজ করার সময় যেটা বুঝলাম যে ওরা কাজের প্রসেস নিয়ে বেশ চিন্তা করে। প্রতিবছর নিজেদের প্রসেস বদলে নতুন কিছু করার চেষ্টা করে। বাহরাইনএর কাজের পরিবেশ আমাদের দেশের মতই।

কবে কখন কিভাবে আপনি ডিজাইনের জগতে আসেন ? আপনি কি ছোট বেলা থেকেই সৃজনশীল ছিলেন বা নির্দিস্ট একটি সময় পার হবার পরে এমন হয়েছেন ?

ছোটবেলা থেকেই আমি ডিজাইন ভালোবাসি। ড্রইং আমার প্রিয় সাবজেক্ট ছিল। এ ব্যাপারে আমার মা খুবই উৎসাহ দিতেন। তিনিও খুব ভালো ডিজাইনার (নিডলওয়ার্ক)। আমার প্রিয় হবিগুলোর মধ্যে একটি ছিল বিভিন্ন্ রকমের পোস্টার/স্টিকার সংগ্রহ করা। মজার বিষয় হল, সেগুলোর ডিজাইন আমার ভালো লাগতো না। একবার ভাবলাম, আমি কেন ওগুলো রিডিজাইন করি না? কাচি দিয়ে ছবিগুলো কেটে আর্ট পেপারে গ্লু দিয়ে এঁটে, সেখানে আমার নিজের মতো করে টেক্সট, ব্যাকগ্রাউন্ড গ্রাফিক্স ইত্যাদি যোগ করতাম। একসময় নিজে নিজে থিম বানিয়ে বই এর কভার, স্পোর্টস, টিভি প্রোগ্রামের পোস্টার, এগুলো বানানো শুরু করলাম। ছোটবেলার কাজগুলো ভালো হতো কিনা বলতে পারছিনা, কিন্তু চেষ্টা করতাম।

কোথা থেকে আপনি প্রতিদিন ডিজাইন করার উৎসাহ পান ?

আমার ডিজাইনের মেইন ইন্সিপিরিশন আসে আমার চারপাশের সাধারন মানুষের, তাদের আকাঙ্ক্ষা, প্রত্যাশা ও অভাব ইত্যাদি থেকে।

আপনার চোখে সর্বকালের শ্রেষ্ঠ ডিজাইনার কে ?

যিনি চাকা ডিজাইন করেছেন। প্রথম কে করেছেন সে বিষয়ে বিতর্ক আছে। ধারনা করা হয় খ্রিস্টপূর্ব ৪ সহস্রাব্দে মেসোপটেমিয়াতে প্রথম চাকার ডিজাইন করা হয়েছিল।

ডিজাইনের ক্ষেত্রে প্রয়োজন পরে এমন টুলস বা সফটওয়্যারের নাম বলুন যেটি ছাড়া আপনার চলা প্রায় অসম্ভব এবং কেন ?

গুগল, উইকিপেডিয়া ইনফরমেশন/রিসার্চ এর জন্য। আর পেন এবং পেপার প্ল্যানিং, ইউজার রিসার্চ/টেস্টিং এর জন্য ।

আপনি যখন কোন ডিজাইন করার জন্য মনস্থির করেন তখন ডিজাইনটি করার আগে স্কেচ বা ছবি একে নেন নাকি সরাসরি কম্পিউটারে ডিজাইন করা শুরু করে দেন ?

আমার বেশিরভাগ সময় ব্যয় হয় রিকয়ারমেন্ট এনালাইসিস, ইউজার রিসার্চ, ইনফরমেশন আর্কিটেকচার এবং প্রোটোটাইপ মেকিং এ। এগুলো করার সময় কিছু ক্ষেত্রে অবশ্যই কম্পিউটার এর প্রয়োজন হয়। ফাইনাল ইউয়াই/ভিজ্যুয়াল ডিজাইনের সময় ফটোশপ ব্যবহার করি।

আপনার কাজের স্থানটি কেমন ?

একটা ১৬ জিবি র‍্যাম / ২ টেরা হার্ডড্রাইভ / কোর আই ৫ ক্লোন্ড পিসি, একটা প্রিন্টার কাম স্ক্যানার আর একটা ৩.১ স্পিকার সিস্টেম।

working-wahid-bin-ahsan

কাজ করার সময় আপনি কোন ধরনের গান শুনতে পছন্দ করেন ?

কাজ আমার কাছে প্রার্থনার মতো। এসময় আমি নিরবতা পছন্দ করি।

আপনার জীবনের টাইম সেভিং শর্টকাট অথবা লাইফ হ্যাক কি?

আমি বিশ্বাস করি শর্টকাট বলে কিছু নেই। একটা কাজ যদি ৪ দিন লাগে, সেটা ৪ দিনই লাগবে। আমরা কি পারবো ২৪ ঘন্টার দিন ৬ ঘন্টার শর্টকাটে পূর্ণ করতে?

প্রতিদিনের টু-ডু লিস্ট তৈরি করার জন্য কোন সফটওয়্যার/পন্থাটি আপনার কাছে সেরা মনে হয় ?

আমার স্মৃতিশক্তি।

দিনের ঠিক কোন সময়ে আপনি খুব মনোযোগ দিয়ে কাজ করতে পারেন ?

আমি সবসময়ই কিছু না কিছু করছি। সবই প্রডাক্টিভ।

আপনার দৈনিক ঘুমানোর সময়সূচি কেমন ?

ক্লান্ত না হওয়া পর্যন্ত আমি ঘুমোতে যাইনা। দৈনিক ৬ – ৭ ঘন্টা ঘুমাই। নির্দিষ্ট কোন রুটিন নেই।

গুণীজনদের কাছ থেকে পাওয়া এখন পর্যন্ত সেরা উপদেশ আপনার কাছে কোনটি মনে হয়েছে ?

আমার বাবা সবসময় বলেন –

মানুষের ভালোবাসা ও সন্মান অর্জনের জন্য কাজ কর।

যেকোনো জটিল পরিস্থিতিতে নিজের কাজ করার মন মানসিকতা ঠিক রাখার জন্য আপনি কি করেন ?

সুন্দর আগামীর প্রত্যাশা ।

আপনি কিভাবে “User Interface” এবং “User Experience” পার্থক্য করেন ?

ইউজার এক্সপেরিএন্স অনেকগুলো বিষয়ের সমষ্ঠি; যেমন, ইউজার রিসার্চ, ইউজেবিলিটি ইঞ্জিনিয়ারিং, ইনফরমেশন আর্কিটেকচার, কগনিটিভ সাইকোলজি, ইন্টার‍্যাকশন ডিজাইন, ইউজার ইন্টারফেইস ডিজাইন, ভিজ্যুয়াল ডিজাইন, ইউজার এক্সপেরিএন্স ইঞ্জিনিয়ারিং, কন্টেন্ট স্ট্র্যাটেজি ইত্যাদি। অর্থাৎ, ইউজার ইন্টারফেইস ডিজাইন হচ্ছে ইউজার এক্সপেরিএন্স ডিজাইন এর একটি সাব-ডিসিপ্লিন।

আপনার ইউএক্স ডিজাইনার জীবনে এখন পর্যন্ত সব থেকে বড় অর্জন কোনটি ?

মানুষের অনেক ভালবাসা পেয়েছি।

সবারই একটি স্বপ্ন বা ইচ্ছা থাকে ভবিষ্যতে একটি প্রতিষ্ঠান বা প্রোজেক্ট নিয়ে কাজ করার, আপনারও যদি এমন কোন স্বপ্ন বা ইচ্ছা থেকে থাকে তবে সেটি কি নিয়ে ?

ইউজার স্টাডি এ্যান্ড এক্সপেরিএন্স রিসার্চ হাব (ইউজারহাব) এর মাধ্যমে ইউজার-সেন্টারড ডিজাইনের প্রেরনা সবার মাঝে ছড়িয়ে দেয়া। একটা প্রডাক্ট বানিয়ে ইউজারদের উপরে চাপিয়ে না দিয়ে, সবাই ইউজারদের আসল প্রয়োজন চিন্তা করে, ইউজারদের ব্যবহার উপযোগি করে, ইউজারদের স্বপ্নের এক্সপেরিএন্স বানাবে এটাই আমার স্বপ্ন।

আসছে পাঁচ থেকে দশ বছরে মজার এমন কিছু কি আছে যা করতে যাচ্ছেন ?

জেলা/উপজেলা পর্যায়ে “ইউএক্স স্যাটারডে উইথ ওয়াহিদ” ও “ইউজারহাব” এর কাজের পরিধি বাড়ানোর মাধ্যমে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই। আমি মনে করি, সমষ্টিগত উন্নতির জন্য ঢাকা-কেন্ত্রিক চিন্তা থেকে বের হয়ে লোকাল কমিউনিটি ডেভেলপ করার বিকল্প নেই। এরই অংশ হিসেবে, দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের ডিজাইনারদের নিয়ে একটি কনফারেন্স করছি, যার নাম – বিগ ডিজাইন ডে।  এডূকেশনাল সেশন, নলেজ শেয়ার, আর প্রফেশনাল  নেটওয়ার্কিং এর মাধ্যমে স্কিলড ডিজাইন কমিনিটি তৈরি করাই এর প্রধান উদ্দেশ্য। প্রথম ইভেন্টটি রংপুরে করছি। এরপর দেশের সবকটি বিভাগীয় শহরে, জেলা পর্যায়ে বিগ ডিজাইন ডে করা হবে। দেশের বিভিন্ন  স্থান থেকে  ৭০০ জন শিক্ষানবিশ ও পেশাদার ডিজাইনার এতে অংশ নিচ্ছেন।

big-design-day-2015-2

আপনি যদি অ্যাপলের জন্য কিছু ডিজাইন করেন তবে সেটি কি হবে এবং কেন ?

একটা বেসিক ফোন। নকিয়া ১১০০ এর মত। স্মার্টফোনের জটিলতার বেড়াজাল থেকে অনেক মানুষ বেড়িয়ে আসতে চাচ্ছে। কিন্তু, আভিজাত্যের কারনে ছোটখাটো ব্র্যান্ডের ফোনে সুইচ করতে পাড়ছে না। তাদের সাহায্য প্রয়োজন।

আপনার প্রিয় ডিজাইন উক্তি ?

A design is a success – when, it is communicative and conversational. When it looks at the user’s eyes, and speaks to the user’s mind. – Wahid bin Ahsan

Design is a success – when it speaks about the user’s expectations, and fulfillment. – Wahid bin Ahsan

A design is a success, when the users experience their very own achievement through it. – Wahid bin Ahsan

A design is a success, when the users are successful using it. – Wahid bin Ahsan

আপনার মতে, বর্তমানে বাংলাদেশে ডিজাইন কমিউনিটির অবস্থান কেমন? ভবিষতে কেমন হবে বলে আপনি মনে করেন ?

দেশের অনেকেই আন্তর্জাতিক মানের ভিজ্যুয়াল ডিজাইন করছে। এটা আনন্দের বিষয়। তবে, ওয়েব/এপ্লিকেশনে যারা কাজ করছে তাদের ইউজার সেন্টারড ডিজাইন প্র্যাকটিস জরুরী। ২০২০ সালের মধ্যে এই ইন্ডাস্ট্রিতে ভিজ্যুয়াল ডিজাইন-ভিত্তিক ডিজাইনারের চাহিদা কমে আসবে। শুধু ওয়েবসাইট টেম্পলেট বানানোর জন্য খুব কম প্রতিষ্ঠানই ডিজাইনার রিক্রুট করবে। বেশিরভাগ কনজিউমার সফটওয়ার নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ইউজার সেন্টারড এক্সপেরিএন্স ডিজাইনার এর একটা বিরাট চাহিদা তৈরি হচ্ছে। বিশ্ববাজারে আমাদের নাম সমুন্নত রাখতে চাইলে এখনি সময় ইউজার সেন্টারড এক্সপেরিএন্স নিয়ে কাজ শুরু করা।

যারা ভবিষ্যতের ইউএক্স ডিজাইনার/ইঞ্জিনিয়ার হতে যাচ্ছে তাদেরকে আরও উৎসাহিত করতে আপনার উপদেশ কি হবে ? ঠিক কিভাবে কাজ করলে তারাও একদিন আপনার মতো হতে পারবে ?

ডিজাইন মানে কালার/শেইপ/ফন্ট নিয়ে খেলা করা নয়। একটা ভালো ডিজাইন মানুষের প্রবলেম সলভ করে, মানুষের জীবন সুন্দর করে, মানুষকে বেঁচে থাকার উৎসাহ যোগায়। ডিজাইনারদের উচিৎ মানুষের কথা চিন্তা করা, মানুষের আকাংখা, প্রত্যাশা ও অভাব উপলব্ধি করে নতুন আশা জাগানোর ডিজাইন করার দিকে মনযোগী হওয়া। এতেই একজন ডিজাইনার এর সফলতা। ট্রেন্ড এর সমুদ্রে গা ভাসালে চলবে না। রহিমের ইউজারের ক্ষেত্রে যে ডিজাইন ভালো কাজ করেছে, করিমের ইউজারদের ক্ষেত্রে সেটা প্রবলেম্যাটিক হতে পারে।

ফটোশপ এ ঝাপিয়ে পরার আগে তোমার ইউজারদের স্টাডি করো। ইউজার রিসার্চ করো।

ওয়েবসাইট অথবা সফটওয়ার এপ্লিকেশন, যাই বানাও না কেন, মৌলিক ডিজাইন করো ইউজারের বেসিক প্রবলেম সল্ভ করার জন্য। তবেই ইউজাররা তোমার ডিজাইন ভালবাসবে। ইউজারদের ভালবাসা এক বিশাল অর্জন।

আপনি আপনার কোনও ইভেন্ট এর প্রেজেন্টেশান কি আমাদের সাথে শেয়ার করবেন ?

আমি সাধারণত প্রেজেন্টেশন শেয়ার করার থেকে লাইভ প্রেজেন্ট করতে বেশী স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি। অনেকের অনুরোধে ইএটিএল প্রথম আলো অ্যাপ কন্টেস্টের কিছু স্লাইডস স্লাইডশেয়ারে আপ করেছি। যেহেতু এখানে লাইভ কিছু বলছিনা, তাই কিছু অংশ এডিট করা হয়েছে।


শূন্যস্থান পুরন করুন, আমি এই একই প্রশ্নের উত্তর গুলো ______ কাছ থেকে শুনতে পছন্দ করব

সকল ডিজাইনার।

Shares