আমি রিয়াদ হুসাইন, একজন উদ্যোক্তা
আমি যেভাবে কাজ করি

Shares

নাম ও পেশা

রিয়াদ শাহির আহমেদ হুসাইন । “Magnito Digital” এর সিইও।

আপনি যখন আপনার স্টার্ট-আপ শুরু করেন তখন আপনার সবচে বড় বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল কোন বিষয়টি, তখন সেই বাঁধাটি আপনি কিভাবে অতিক্রম করলেন ?

২ বছর আগে আমি যখন কোম্পানি শুরু করি, তখন যে সমস্যাটির জন্য আমাকে সবচেয়ে বেশি নিজের সাথে যুদ্ধ করতে হয়েছিল সেটি হল  মাইক্রো ম্যানেজমেন্ট । ব্যবসা সংক্রান্ত প্রায় সকল খুঁটিনাটি বিষয়ে আমাকে জড়িত থাকতে হত, যেটি একদিক দিয়ে ভাল কিন্তু এর খারাপ দিকও আছে। একজন সিইও কে অবশ্যই সুকৌশলী এবং একটি সলিড টিমের প্রতিনিধি হতে হবে। প্রথমদিকে আমাকে খুব বেশি বেগ পেতে হয়েছে আমার টিমের জন্য উপযুক্ত মানুষ খুঁজে বের করতে। অবশেষে উপযুক্ত মানুষদেরকে আমাদের কম্পানিতে কাজ করতে আকর্ষিত করতে পেরেছি। শুধুমাত্র তাদের কারনেই, আমার যে কাজগুলোর দিকে বেশি মনোযোগী হওয়া দরকার ছিল সেদিকে মনোযোগী হতে পারা আমার জন্য সম্ভব হয়েছে।

আপনার সফলতার পেছনে কোন জিনিসটির অবদান সবচেয়ে বেশি ?

আমার ক্ষেত্রে, ব্যবসায়ে সফলতার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কারনগুলো হচ্ছেঃ সততা, কঠোর পরিশ্রম এবং দূরদর্শিতা

কোন ব্যাপারটিতে আপনার স্টার্ট-আপ অন্যান্য সব স্টার্ট-আপ থেকে আলাদা ?

আমাদের কোম্পানিতে একটি amazing young team আছে যারা অফিসের সবাইকে তাদের ফ্যামিলির মত করে দেখে। এই  সংস্কৃতিটিই সম্ভব করেছে,  আমাদের ক্লাইন্টদের চাহিদা অনুযায়ী সবচেয়ে বেষ্ট প্রোডাক্ট ডেলিভারি দিতে।

আগামী ৫ বছরে আপনি “Magnito Digital” কে কোথায় দেখতে চান?

Magnito Digital ২ বছরেরও কম সময়ের মধ্যে যা কিছু অর্জন করেছে তার জন্য আমি খুবই কৃতজ্ঞ। পরবর্তী ৫ বছরের মধ্যে আমি আশা করি Magnito Digital কমপক্ষে ৩টি দেশে সফলতার সাথে তার কার্যক্রম পরিচালনা করবে।

প্রতিদিন আপনার কাছে এমন কি মনে হয়, যে আপনি সবার থেকে আলাদা ?

আমি মনে করি, আমার একটি গড গিফটেড গুণ আছে। আমি যখন যে কাজই করি না কেন তখন সেটির একদম গভীরে প্রবেশ করতে পারি।

আপনি অন্য কোন সহজ পথ গ্রহণনের পরিবর্তে কেন একজন উদ্যোক্তা হতে অনুপ্রাণিত হয়েছেন ?

শুরু থেকেই আমার ইচ্ছা ছিল, আমি যাই করি না কেন আমি যেন  আমার কাজের মাধ্যমে সমাজে প্রভাব তৈরি করতে পারি এবং পরিবর্তন আনতে  সক্ষম হই। আমি মনে করিঃ

I see entrepreneurship as the gateway that has allowed me to experiment such philosophy

অন্যান্য সব বিষয় খেয়াল রেখে আপনার ব্যবসা সঠিক ভাবে পরিচালনা করেন কিভাবে?

আমার জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপুর্ণ বিষয়গুলো হলো আমার পরিবার, ব্যবসা, বন্ধুরা এবং ফুটবল। আমি সপ্তাহে কমপক্ষে দুই থেকে তিন দিন ফুটবল খেলি। আমার ৪ – ৫ টি ছোট ব্যবসা থাকার ফলে আমাকে সময় নিয়ে প্রায়ই একটু সমস্যায় পরতে হয়। যাইহোক, আমি ধীরে ধীরে  ব্যবসা সঠিক ভাবে পরিচালনার গোপন ব্যাপারটি বুঝতে পেরেছি সেটি হল আপনার ব্যবসার জন্য আপনার আশেপাশে স্মার্ট মানুষদের প্রয়োজন। বর্তমানে আমার সকল ব্যবসায়ের সাথে খুব চমৎকার চমৎকার মানুষ আছেন যাদের সাথে আমি খুব ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করি এবং তাদের জন্যই  আমার পক্ষে সিস্টেমিক ওয়েতে কাজ করা সম্ভব হয়েছে। যখন আপনি ব্যবসায় সম্প্রসারন করা শুরু করবেন তখন এটা খুবই গুরুত্বপুর্ণ।

আপনার প্রতিদিনকার কাজ সম্পাদন করার জন্য কোন ডিভাইসটি সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করে থাকেন এবং কেন ?

gadgets-riyad

Camera, Go-Pro, iPAD, Smartphone & Mackbook Air

সত্যি বলতে, কয়েক বছর ধরে আমার দৈনন্দিন যা কাজ থাকে সেগুলো আমি স্মার্টফোন দিয়ে সেরে ফেলি। যেমন মেইল চেক করা, ড্রপবক্স, সোশ্যাল মিডিয়াতে যাওয়া সহ বিভিন্ন ব্লগ, সাইট ভিজিট করা ইত্যাদি। এর পরেই বলবো আমার ল্যাপটপের কথা, যেটি আমার কাজের প্রেজেন্টেশান এবং স্প্রেডশীটের জন্য খুবই জরুরি। আমি নিজেকে রেগুলার ট্যাব ইউজার বলব না। তবে রাতে প্রায়ই, ব্রাউজিং করার জন্য ট্যাব ব্যবহার করি। আমি ব্যক্তিগতভাবে ব্যবহার করি ওয়ান প্লাস ওয়ান স্মার্টফোন, ম্যাকবুক এয়ার এবং আইপ্যাড

তিনটি অ্যাপ্লিকেশন,সফটওয়্যার বা টুলস যেগুলো ব্যতিত আপনি একেবারেই  চলতে পারেন না ?

আর সবার মতো, Gmail অ্যাপটি লিস্টের সবার উপরেই থাকবে। তারপরেই বলব Dropbox । একটি মজার ব্যাপার হচ্ছে, আমার কাজের সংশ্লিষ্ট সব ধরনের ফাইল ও ডকুমেন্টস আমি আমার Paid Dropbox অ্যাকাউন্টে রাখি এবং এখন আর আমাকে হার্ডড্রাইভের উপর নির্ভর হয়ে থাকতে হয়না। তাই Dropbox For Android অ্যাপটিই হবে এমন একটি অ্যাপ যেটি ছাড়া চলা আমার প্রায়ই অসম্ভব।কারন এটির মাধ্যমেই আমার যত প্রয়োজনীয় ফাইল আছে সেগুলো সবসময় আমার সাথে বহন এবং শেয়ার করতে পারছি, আমি পৃথিবীর যে প্রান্তেই থাকি না কেন। তৃতীয়ত WhatsApp। যেখানে আমি ব্যবসা থেকে শুরু করে ফুটবল এবং পরিবারের খুবই দরকারি ৬-৭ টি গ্রুপের সাথে যুক্ত আছি। আমার খাবার রিলেটেড যে ব্যবসাগুলো আছে সেগুলোর আপডেট পাই WhatsApp এর গ্রুপ থেকে।

Screenshot_2015-01-06-00-45-39Screenshot_2015-01-06-00-45-50Screenshot_2015-01-06-00-46-07Screenshot_2015-01-06-00-45-33

আপনার কাজের স্থানটি কেমন ?

সত্যিই অনেক সাধারণ! আমি আমার  ১৩ ইঞ্চি ম্যাকবুক সংযুক্ত করি ২২ইঞ্চি ডেল মনিটরের সাথে এবং এক্সটারনাল কিবোর্ড ও মাউস! আর কিছুই না!

প্রতিদিনের টু-ডু লিস্ট তৈরি করার জন্য কোন সফটওয়্যার/পন্থাটি আপনার কাছে সেরা মনে হয় ?

সবসময়ই Evernote আমার পছন্দের ছিল কিন্তু কিছুদিন হল Google Keep ব্যবহার করছি।

মোবাইল ফোন/কম্পিউটার ছাড়া এমন কোন প্রযুক্তি পণ্য আছে কি যেটি ছাড়া আপনি চলতে পারেন না ?

নিয়মিত আমি আমার অফিস শেষ করে সপ্তাহে অন্তত ২ দিন ফুটবল খেলতে পছন্দ করি। ফুটবল খেলার সময় Fitbit wrist band ব্যবহার করি, প্রতেকটি স্টেপস ও ক্যালোরি বার্ন হিসাব রাখার জন্য। আর আমার ছবি তোলার শখ আছে যার কারনে Go-Pro এবং DSLR Camera ব্যবহার করা হয়।

images

Fitbit wrist band

10272258

Go-Pro

 

আপনার দৈনিক ঘুমানোর সময়সূচি কেমন ?

When it comes to sleep routine, I am a bit of a bad boy!

আমি অনেক রাত্র জেগে থাকি কিন্তু সবসময়ই এটা নিশ্চিত করি কাজে যাওয়ার আগে যেন আমার ৭-৮ ঘণ্টা ঘুম হয়। যার কারনে অফিসে আমি কখনোই সকাল ১১টার আগে অফিসে উপস্থিত হতে পারিনা।

দিনের ঠিক কোন সময়ে আপনি খুব মনোযোগ দিয়ে কাজ করতে পারেন ?

আমার অফিস সকাল ১১টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত। তবে আমার সবচেয়ে বেশি প্রডাকটিভ টাইম স্লট সকাল ১১টা থেকে দুপুর ৩টা পর্যন্ত।

কাজ করার সময় আপনি কোন ধরনের গান শুনতে পছন্দ করেন ?

সবাই অফিসে যে মিউজিক/গান বাজায় তাই আমি পছন্দ করি! আমরা অফিসে মিউজিক বা গান বাজানোকে উৎসাহিত করি।

একজন বাংলাদেশি হিসেবে যানজট আমাদের নিত্য দিনের সঙ্গী। আপনি যানজটের সময়টাকে সদ্ব্যবহার করার জন্য কি করেন ?

যখন ট্র্যাফিক জ্যামে বসে থাকি সেই সময়টা আমার স্মার্টফোনের সাথেই কাটাতে হয়ে থাকে।

কঠিন সময়গুলোতে আপনি কিভাবে নিজেকে অনুপ্রাণিত রাখেন?

আমার ব্যাপারটা হল, আমার যখন কোন কাজ না থাকে তখন আমি নিষ্প্রভ (dull) হয়ে যাই। যখন আমি অনেক কাজের চাপে থাকি, তখন আমার মস্তিষ্ক শার্প হয়ে উঠে এবং আমি আমার সর্বোচ্চটুকু দিতে পারি। এইভাবে কঠিন সময়গুলোই আসলে আমাকে অনুপ্রাণিত করে তোলে।

আপনার পাওয়া সবচেয়ে ভালো উপদেশ বা উদ্ধৃতি কি ?

এটি আসলে আমার নিজের একটি উদ্ধৃতি

The key to being a successful entrepreneur is to have that same zeal you once had as a 5 year old, when you were confident of jumping from the rooftop in your superman cloak – Riyad S.A. Husain

একজন উদ্যোক্তার কোন তিনটি বই বা সিনেমা অবশ্যই পড়া বা দেখা উচিৎ ?

আমার সবসময় বই পড়া হয়না কিন্তু আমার মতে সবার  “Richard Branson’s bestselling autobiography” এবং “Screw it, lets do it” বই দুইটি পড়া উচিৎ।

losing-my-virginity

Richard Branson’s bestselling autobiography

Screw-it-lets-do-it

Screw It, Let’s Do It: Lessons In Life Richard Branson

 

বাংলাদেশের কিছু সম্ভাবনাময় উদ্যোক্তাদের সম্পর্কে বলুন যাদের সফলতার গল্প আপনার কাছে উল্লেখযোগ্য মনে হয় ।

ইউনিভার্সিটি জীবন থেকে আমার খালু জনাব সালমান মাসুদ, ডানা গ্রুপ এর এম.ডি. ছিলেন আমার আইকন। আমি তাকে শুন্য থেকে শুরু করে দেশের অন্যতম একজন সফল ব্যবসায়ী হতে দেখেছি। আমি তার কাছ থেকে যে জিনিস গুলোকে খুজে পেয়েছি তা হল তার লক্ষ্য, একাধিক ব্যবসা পরিচালনা করার ক্ষমতা এবং সঠিক সময়ে সঠিক বিনিয়োগ করা । আমি সর্বদা তার ফুটস্টেপ অনুসরণ করতে চেয়েছিলাম এবং তাই আমি ব্যবসায় যুক্ত হই। তরুন প্রজন্মের মধ্যে আমি NewsCred এর ইরাজ ইসলাম এর মধ্যে সেই জিনিসগুলোকে দেখতে পাই। সে Magnito Digital এর একজন শুভাকাঙ্ক্ষী এবং আমাদের মধ্যে ভাল সম্পর্ক আছে। তার কাছ থেকে শেখার অনেক কিছু আছে, বিশেষ করে যখন ব্যবসাকে জাতীয় থেকে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নেয়ার কথা আসে।

যারা ভবিষ্যতের উদ্যোক্তা হতে যাচ্ছে তাদেরকে আরও উৎসাহিত করতে আপনার উপদেশ কি হবে?

আমি খুবই সাধারন একটি উপদেশ দিব। যে কেউই অসাধারন আইডিয়া নিয়ে আসতে পারে। কিন্তু সকলেই তা বাস্তবায়ন করতে পারে না। যথার্থ বাস্তবায়ন ছাড়া একটা আইডিয়া আসলে কিছুই না! তাই আমার উপদেশ হল –

To be focussed and go into action and executing things rather than talking!

“ATN Young Nite” এবং “ITTW CONFERENCE 13” এ স্পিকার হিসেবে রিয়াদ হুসাইন।

 
 

শূন্যস্থান পুরন করুন, আমি এই একই প্রশ্নের উত্তর গুলো  ______  কাছ থেকে শুনতে পছন্দ করব।

ইরাজ ইসলাম ।

Shares